কাউকে স্পর্শ করতে দেয়া হচ্ছে না কাবা শরিফ

১১৪৫
কাবা শরিফ

মক্কার পবিত্র কাবা শরিফে নামাজ পড়তে গেলে তাওয়াফ করা একরকম ঐতিহ্যের মধ্যেই পড়ে। অনেকেই সেখানে গিয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। সবাই চেষ্টা করেন কাবার যতটাসম্ভব কাছে যে।

অনেকেই গিলাফ ধরে কান্নাকাটি করেন। সবার আগ্রহ থাকে হাজরে আসওয়াদে চুমু খাবার। মিডল ইস্ট মনিটর, খালিজ টাইমস, আল আরাবিয়া কিন্তু এর কোনটাই আর সম্ভব হচ্ছে না।

পবিত্র কাবা শরীফ ঘিরে ফেলা হয়েছে ৩ স্তরের বেড়ায়। এমনকি মাকামে ইব্রামিমেও আর নামাজ পড়ার সুযোগ নেই। সুযোগ নেই হাজরে আসওয়াদ জিয়ারত বা চুমু খাবার। কাবা শরীফের মাধ্যমে যেনো করোনাভাইরাস না ছড়ায়, সেটি নিশ্চিক করতেই নেয়া হয়েছে এই উদ্যোগ।

মাঝখানে একদিন বন্ধ ছিলো পবিত্র মসজিদুল হারাম। পরে তা খুলে দেয়া হলেও সবাইকে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে সেখানে প্রবেশে। এমনকি জুমার নামাজেও লোকসমাগম হয়েছে অনেক কম।

কর্তৃপক্ষ জানিয়ে দিয়েছিলো, খুতবা, জামাত ও মুনাজাতে কোনওভাবেই ৫ মিনিটের বেশি সময় নেয়া যাবে না। তা অক্ষরে অক্ষরে মেনেছেন মসজিদুল হারামের খতিব। মাত্র ৮ মিনিটেই শেষ করেছেন জুমার সকল আনুষ্ঠানিকতা।

এদিকে সৌদি ধর্মমন্ত্রণালয় একটি সূত্র বলছে, হজ বাতিল বা পিছিয়ে দেয়া যায় কিনা সেই সংক্রান্ত ফতোয়া খুঁজতে কাজ শুরু করেছে সৌদি শরিয়াহ বোর্ড।

বিষয়টি কিয়াসের আওতায় সমাধানের জন্য বিশ্বের শীর্ষ ৫০জন আলেমকে বিভিন্ন দেশ থেকে ডেকে নেয়াও হয়েছে। তবে কবে নাগাদ হজের বিষয়ে সিদ্ধান্ত আসবে তা জানা যায়

রেদওয়ানুল/আওয়াজবিডি


অনলাইন ডেস্ক
অনলাইন ডেস্ক
https://www.awaazbd.com/author/awaazbdonlinenews

অনলাইন ডেস্ক

mujib_100
ads
আমাদের ফেসবুক পেজ
সংবাদ আর্কাইভ