খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে হবিগঞ্জে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল

পুলিশ প্রশাসন আ.লীগের পতন ঠেকাতে পারবে না: জি কে গউছ

২৮৫
জি কে গউছ

বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সমবায় বিষয়ক সম্পাদক, হবিগঞ্জ জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক এবং টানা ৩ বারের নির্বাচিত হবিগঞ্জ পৌরসভার পদত্যাগকারী মেয়র আলহাজ্ব জি কে গউছ বলেছেন, নমরূদ-ফেরাউনের ক্ষমতাকে আল­াহ ধ্বংস করে দিয়েছেন। তারা চিরদিন ক্ষমতাকে আকড়ে ধরে পৃথিবীতে থাকতে পারেনি। যারা জনগণের ভোট চুরি করে ক্ষমতায় গিয়ে মানুষের জানমালের ক্ষয়ক্ষতি করছে, ঘুম-খুনের মাধ্যমে একেকটি পরিবারকে ধ্বংস করে দিচ্ছে, মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে নিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের নির্যাতন করছে, আদালতকে কাজে লাগিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে কারাবন্দি করেছে, তাদেরও একদিন পতন হবে। ইনশাআল্লাহ, আদালতকে ব্যবহার করে খালেদা জিয়াকে চিরস্থায়ীভাবে কারাগারে আটক করে রাখা যাবে না। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি হবেই। খালেদা জিয়ার হাত ধরেই আবারও দেশে গণতন্ত্র ফিরে আসবে, জনগনের সরকার প্রতিষ্ঠিত হবে।

তিনি রবিবার দুপুরে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তি এক সমাবেশে এসব কথা বলেন।

জি কে গউছ বলেন, পৃথিবীর কোন স্বৈশাসক ঠিকে থাকতে পারেনি, আওয়ামী লীগও ঠিকে থাকতে পারবে না। প্রশাসনকে কাজে লাগিয়ে সাময়িকভাবে বিরোধীদলকে দমিয়ে রাখতে হয়তো সফলতা পাচ্ছে, কিন্তু পুলিশ প্রশাসন আওয়ামীলীগের পতন ঠেকাতে পারবে না, আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের শেষ সরকার না।

তিনি বলেন, দেশ দুর্নীতির মহাসাগরে নিমজ্জিত। জনগণের সম্পদ লুটপাট করে আওয়ামীলীগ নেতারা দেশে-বিদেশে সম্পদের পাহাড় গড়ে তুলেছেন। শুধু পিয়াজের বাজার থেকে ২ হাজার কোটি টাকা লুট করে নিয়ে গেছে আওয়ামী সিন্ডিকেট। হবিগঞ্জ একটি ছোট্ট শহর, এই শহরে খোদ সরকার প্রধানের নামে প্রতিষ্ঠিত শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ থেকে ১৪ কোটি টাকা লুটপাট হয়ে গেছে। এ রকম অসংখ্য দুর্নীতি হবিগঞ্জে হয়েছে। কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকে এই দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। রাজনৈতিকভাবে তাদেরকে পুরষ্কৃত করা হচ্ছে।

সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখছেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মিজানুর রহমান চৌধুরী, গোলাম মোস্তফা রফিক, জেলা শ্রমিকদলের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এস এম বজলুর রহমান, সদর উপজেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আজিজুর রহমান কাজল, জেলা বিএনপির সদস্য মহিবুল ইসলাম শাহীন, তাজুল ইসলাম চৌধুরী ফরিদ, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক জালাল আহমেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সফিকুর রহমান সিতু, জেলা মৎস্যজীবি দলের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমেদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জহিরুল হক শরীফ, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মুশফিক আহমেদ, জেলা জাসাসের সভাপতি মিজানুর রহমান চৌধুরী, জেলা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট ফাতেমা ইয়াসমিন, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি এমদাদুল হক ইমরান, সাধারণ সম্পাদক রুবেল আহমেদ চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ রাজীব আহমেদ রিংগন, জেলা জাসাসের সাধারণ সম্পাদক শাহ ফারুক আহমেদ, সোহেল এ চৌধুরী, এডভোকেট ইলিয়াছ আহমেদ, এডভোকেট গুলজার খান, জিকে ঝলক প্রমুখ।

এসএম/আওয়াজবিডি


সিরাজুল ইসলাম জীবন
সিরাজুল ইসলাম জীবন
https://www.awaazbd.com/author/awaazusa-bd

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

mujib_100
ads
আমাদের ফেসবুক পেজ
সংবাদ আর্কাইভ