/ins>

সেকেন্ডে ৩ কিমির বেশি গতিতে ছুটছে বঙ্গবন্ধু-১

আওয়াজবিডি ডেস্ক

মহাকাশের পথে প্রতি সেকেন্ডে ৩ দশমিক ৩ কিলোমিটার গতিতে এখন এগোচ্ছে দেশের প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ বা স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১। রোববার (১৩ মে) বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত স্যাটেলাইটটি পর্যবেক্ষণকারী বিভিন্ন ওয়েবসাইট ঘেঁটে এ তথ্য পাওয়া যায়। ও

ওয়েবসাইটগুলোর মধ্যে স্যাটফ্লেয়ার ডটকম এবং এনটুওয়াইও ডটকম থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ওই সময় দক্ষিণ আটলান্টিক মহাসাগরের ওপর দিয়ে নাইজেরিয়ার পাশ দিয়ে ধীরে ধীরে নিজ কক্ষপথের দিকে ছুটছিল স্যাটেলাইটটি। বঙ্গবন্ধু-১ মালি, নাইজার, বুরকিনা ফাসো, শাদ, সুদান, ইয়েমেন, আরব মহাসাগর ধরে ভারতের কেরালা, শ্রীলঙ্কা হয়ে সিঙ্গাপুরের ওপরের কক্ষপথটি ব্যবহার করছিল।

এ ছাড়া এই ওয়েবসাইট থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, বঙ্গবন্ধু-১ বর্তমানে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে সাড়ে ৩০ হাজার কিলোমিটার বা ১৮ হাজার ৬০০ মাইল ওপরে অবস্থান করছে। শনিবার ভোরে (শুক্রবার দিবাগত রাত ২টা ১৪ মিনিটে) ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টারের লঞ্চ প্যাড থেকে উৎক্ষেপণ হওয়া স্যাটেলাইটটি ৩৩ মিনিটেই কাক্সিক্ষত কক্ষপথে (জিওস্টেশনারি ট্রান্সফার অরবিটে) পৌঁছায়। এর ৭ মিনিটের মাথায় (উৎক্ষেপণের ৪০ মিনিট) গাজীপুরের জয়দেবপুরে অবস্থিত গ্রাউন্ড স্টেশন এবং রাঙামাটির বেতবুনিয়া গ্রাউন্ড স্টেশনে সঙ্কেত পাঠায় সেটি। বঙ্গবন্ধু-১ থেকে সঙ্কেত পাওয়ার বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন গ্রাউন্ড স্টেশনের নেটওয়ার্ক প্রকৌশলী তাজুল ইসলাম।

/ins>

এ ছাড়া তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকও সিগন্যাল গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। পলক জানান, বাংলাদেশ সময় ১২ মে শনিবার ভোর ৪টা ২৫ মিনিটে গাজীপুর ও বেতবুনিয়া গ্রাউন্ড স্টেশন প্রাথমিক সিগন্যাল গ্রহণ করে। কক্ষপথে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটটি পুরোপুরি স্থাপনের জন্য আরো ১১ দিন সময় লাগবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী।

/ins>

জানা যায়, ফ্যালকন-৯ রকেট থেকে উন্মুক্ত হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি ও দক্ষিণ কোরিয়ার তিনটি গ্রাউন্ড স্টেশন থেকে বঙ্গবন্ধু-১-এর নিয়ন্ত্রণ নেওয়া হয়েছে। ৩৬ হাজার কিলোমিটার উঁচুতে মহাকাশের ১১৯ দশমিক ১ পূর্ব দ্রাঘিমাংশে নিজস্ব অরবিটাল স্লটে অবস্থান নেবে এ কৃত্রিম উপগ্রহ। তবে অরবিটাল স্লটে স্যাটেলাইটটিকে বসিয়ে কাজ শুরু করতে সময় লাগবে প্রায় দুই মাস। তখন গাজীপুর আর রাঙামাটির গ্রাউন্ড স্টেশন থেকে এটিকে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে। বাংলাদেশের গ্রাউন্ড স্টেশনে পুরোদমে কাজ শুরু করতে আরো তিন মাস লাগবে বলে জানান তাজুল ইসলাম।

/ins>

Comments With Facebook