/ins>

পরীক্ষায় অকৃতকার্য ছেলে, বাড়িতে আতসবাজি-শামিয়ানায় মিষ্টিমুখ-শোভাযাত্রা

আওয়াজবিডি ডেস্ক

সারা বাড়ি জুড়ে আলো আর আতসবাজির রোশনাই। বন্ধুবান্ধব পড়শিদের জন্য অকাতর মিষ্টি বিলাচ্ছেন। মিষ্টিমুখেই সবাই অভিনন্দন জানাতে ব্যস্ত। দশম শ্রেণীর পরীক্ষায় ভাল ফল বলে কথা। মুখ ভরা মিষ্টি নিয়েই বিস্ময়ে হতবাক সবাই। পাশ নয়‚পরীক্ষায় ফেল করেছে ছেলে। তবু বাড়িতে উৎসবের আমেজ। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মধ্যপ্রদেশের ভোপালে।

স্থানীয় এলাকা সগরের বাসিন্দা সুরেন্দ্রকুমার ব্যাসের ছেলে এ বার ক্লাস টেনের চূড়ান্ত পরীক্ষায় বসেছিল। কিন্তু পরীক্ষায় সে অকৃতকার্য হয়েছে। বাড়িতে উদযাপনের রসদ মজুতই ছিল। সেগুলোই কাজে লাগালেন বাবা। যাতে ছেলের মন না ভেঙে যায়। তিনি ছেলেকে বুঝিয়েছেন স্কুলের পরীক্ষায় সফল হওয়াই জীবনের শেষ কথা নয়। ছেলে হতাশ হয়ে যেন না হয়। কোনওরকম ভালমন্দ সিদ্ধান্ত না নিয়ে ফেলে। তাই ছেলে মন খারাপ যেন না করে। বাড়িতে আনন্দের হাট বসিয়েছেন।

পেশায় ঠিকাদার সুরেন্দ্রকুমার বাড়িতে শামিয়ানা টাঙিয়েছেন। তার এইব বিরল পদক্ষেপের কথা জেনে বাড়িতে আরও উপচে পড়েছে ভিড়। সবাই অভিনন্দন জানাতে চান পিতাপুত্র দুজনকেই। তারা ওই বাবার ইতিবাচক মানসিকতার প্রশংসা না করে পারছেন না।

/ins>

সুরেন্দ্র বলেন, কোনও একটা ক্ষেত্রে ব্যর্থতা মানেই জীবনের সব সম্ভাবনার পথ বন্ধ হয়ে যাওয়া নয়। আমি এই বার্তাই দিতে চেয়েছেই আমার ছেলেকে। আমার ছেলের এখন জীবনের অন্য বিকল্পগুলি ইতিবাচক মানসিকতার সঙ্গে খুঁজে দেখতে হবে এবং কখনওই হাল ছেড়ে দেওয়া উচিত নয়। পরিবার ও বন্ধুবান্ধবদের এই মানসিকতায় আপ্লুত ওই পরীক্ষার্থী। অন্যান্যদের বাবা-মাও যেন একই ধরনের ইতিবাচক মনোভাব গ্রহণ করেন। তবে ওই পড়ুয়া জানিয়েছে, এরপর সে আর পড়াশোনা করবে না। বাবার ব্যবসাকেই জীবিকা হিসেবে বেছে নেওয়ার চেষ্টা করবে।

/ins>

আজকের এই ইঁদুরদৌড়ের যুগে সুরেন্দ্রকুমারের ভূমিকা শুধু বিরল নয়। বিরলের মধ্যে বিরলতম। তাঁর আচরণকে আরও যথাযথ মনে হয় একটা পরিসংখ্যানের দিকে চোখ রাখলে। তা হল‚ গত সোমবার মধ্যপ্রদেশ বোর্ডের পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর ১১ জন পড়ুয়া আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। তাদের মধ্যে ছয়জন মারা গিয়েছে। এবার দশম শ্রেণীর পরীক্ষায় ৩৪ শতাংশ এবং দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষায় ৩৪ শতাংশ পরীক্ষার্থী অকৃতকার্য হয়েছে। ঘরে ঘরে সুরেন্দ্রকুমারের মতো সহমর্মী বাবা থাকলে হয়তো এই পরিসংখ্যান দেখতে হতো না।

/ins>

Comments With Facebook