/ins>

‘আমাদের শিশু-আমাদের অহংকার’ শ্লোগানে নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত হবে ফোবানা কনভেনশন ২০১৯

হাকিকুল ইসলাম খোকন

উত্তর আমেরিকায় বাংলাদেশীদের ঐক্যের বন্ধন সুসংহত করার প্রত্যয়ে ‘আমাদের শিশু-আমাদের অহংকার’ শ্লোগানে আগামী বছর নিউইয়র্ক সিটিতে অনুষ্ঠিত হবে তিন দিন ব্যাপি ফোবানা কনভেনশন ২০১৯। ম্যানহাটানের বিশ্বখ্যাত মেডিসন স্কোয়ার গার্ডেনে আগামী বছরের ৩০-৩১ আগস্ট এবং ১ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে এ কনভেনশন।

উত্তর আমেরিকায় জন্ম নেয়া ও বেড়ে ওঠা বাংলাদেশী প্রজন্মের কাছে বাংলাদেশকে তুলে ধরার মহানমন্ত্রে উজ্জীবিত হয়ে হোস্ট সংগঠন ‘ড্রামা সার্কল’ আয়োজন করবে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ এসোসিয়েশন্স ইন নর্থ আমেরিকা – ফোবানা’র এ ৩৩তম বাংলাদেশ কনভেনশন। ফোবানা কনভেনশনকে স্মরণীয় করে রাখতে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েই মাঠে নামছে হোস্ট সংগঠন ‘ড্রামা সার্কল’। বাংলাদেশী প্রজন্মকে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে ব্যাপক কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে বলে জানান আয়োজকরা।

/ins>

/ins>

নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিতব্য ফোবানা কনভেনশন ২০১৯’র সার্বিক প্রস্তুতির বিষয় জানাতে গত ১১ মে শুক্রবার সন্ধ্যায় ওয়ার্ল্ডস ফেয়ার মেরিনায় এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে হোস্ট সংগঠনটি। ‘কিক অফ এনাউন্সমেন্ট ফান্ডরেজিং গ্র্যান্ড গালা ডিনার নাইট’ শিরোণামে এ অনুষ্ঠানে হোস্ট সংগঠনের কর্মকর্তারা ছাড়াও ফোবানা নির্বাহী কমিটির বর্তমান ও সাবেক কর্মকর্তাবৃন্দ, কমিউনিটি লিডার, স্পন্সর, সাংবাদিকসহ সুধীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে স্পন্সর, ফোবানা এক্সিকিউটিভ কমিটির বর্তমান ও সাবেক কর্মকর্তরা বক্তব্য রাখেন।

/ins>

ফোবানা কনভেনশন ২০১৯’র কনভেনার নার্গিস আহমদ এবং মেম্বার সেক্রেটারী আবির আলমগীর কনভেনশনের প্রস্তুতির তথ্য জানিয়ে বলেন, সম্পূর্ণ ব্যতিক্রমী আয়োজনে বিপুল সংখ্যক বাংলাদেশীর অংশ গ্রহণে অনুষ্ঠিত হবে এ সম্মেলনটি। যা ফোবানা’র জন্য হয়ে থাকবে ইতিহাস। তারা জানান, ফোবানা কনভেনশন ২০১৯’র প্রস্তুতি এগিয়ে চলছে দ্রুত গতিতে। অবিশ্বাস্য সাড়া পাচ্ছেন তারা। বিশেষ করে তাদের ওপর স্পন্সরদের আস্থায় তারা অবিভূত। ইতোমধ্যে স্পন্সরদের বেশ ক’জন তাদের স্পন্সর মানি পরিশোধও করেছেন। যা ফোবানা’র ইতিহাসে ইতোপূর্বে ঘটেনি।

/ins>

‘ড্রামা সার্কল’র প্রেসিডেন্ট আবির আলমগীরের সঞ্চালনে অনুষ্ঠানে আরো জানানো হয়, সম্মেলনের সার্বিক কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত থাকবে বাংলাদেশী নতুন প্রজন্ম। বিপুল উৎসাহ উদ্দিপনা ও আনন্দঘন পরিবেশে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের ব্যবস্থাপনায়ও থাকবে তারা। নতুন প্রজন্মকে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ, হাজার বছরের বাঙালি ঐতিহ্য এবং শেকড়ের প্রতি মমত্ববোধের গভীরতা সম্পর্কে জানাতে এ সম্মেলনের গুরুত্ব অপরিসীম। আমরা আমাদের শেকড়কে যেন ভুলে না যাই। মূল শেকড়কে ভিন্ন সংস্কৃতির বলয়ে বাচিয়ে রাখতে হবে।

ফোবানার ৩৩ তম বাংলাদেশ সম্মেলনকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য জমকালো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ছাড়াও রাখা হয়েছে নানা কর্মসূচি। সম্মেলনে সঙ্গীত পরিবেশন করবেন দু’বাংলাসহ প্রবাসের বিশিষ্ট শিল্পীরা। সম্মেলন স্থলের পাশেই বই, শাড়ী-কাপড়, গয়না, খাবার, রিয়েল এস্টেট সহ বসবে নানা স্টল।

২০১৯ সালের ফোবানাকে সর্বাত্মক সফল করতে মিডিয়ার আন্তরিক সহায়তা কামনা করেন আয়োজকরা। আয়োজকদের পক্ষ থেকে আগাম আমন্ত্রণ জানান হয়েছে সকল বাংলাদেশীকে।

অনুষ্ঠান উপলক্ষে একটি ছোট্র স্মরণীকা প্রকাশ করা হয়।

উল্লেখ্য, এর আগে বিগত ২০০০ সালে নিউইয়র্কের বিশ্বখ্যাত মেডিসন স্কোয়ার গার্ডেনে ফোবানা সম্মেলনের আয়োজন করে বাংলাদেশী কমিউনিটির প্রশংসা কুড়িয়েছিল বাংলাদেশ লীগ অব আমেরিকা।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, আগামী ২৭ জুলাই থেকে আটলান্টার ডাউন টাউনের ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস সেন্টারের মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে তিন দিনব্যাপী ৩২ তম ফোবানা। বিভিন্ন স্টেট থেকে আগত অতিথিদের থাকার জন্যে স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে সিএনএন টিভি সেন্টার ওমনি আটলান্টা হোটেলে।

আরো উল্লেখ্য যে, বিগত ২৬ বছর আগে উত্তর আমেরিকায় বাংলাদেশীদের ঐক্যের বন্ধন সুসংহত করার সংকল্পে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ এসোসিয়েশন্স ইন নর্থ আমেরিকা – ফোবানা’র যাত্রা শুরু হয়।

 

Comments With Facebook